Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সাধারণ তথ্য


ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের অধীনস্থ একটি সেবাধর্মী প্রতিষ্ঠান। ১৯৮২ সালে ফায়ার সার্ভিস পরিদপ্তর, সিভিল ডিফেন্স পরিদপ্তর এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগের উদ্ধার পরিদপ্তরের সমন্বয়ে প্রতিষ্ঠিত হয় বর্তমান ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তর। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীন এ প্রতিষ্ঠানটি গতি, সেবা ও তাগের মূলমন্ত্রে উজ্জীবিত। প্রথম সাড়া প্রদানকারী সংস্থা( First Responder Organization)  হিসেবে এ বিভাগের কর্মীরা অগ্নি নির্বাপণ, অগ্নি প্রতিরোধ, উদ্ধার, আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান, মুমূর্ষু রোগীদের হাসপাতালে প্রেরণ ও দেশী-বিদেশী ভিআইপিদের অগ্নি নিরাপত্তা বিধান করে থাকে। প্রাকৃতিক ও মানব সৃষ্ট যে কোন দুর্যোগে এ বিভাগের অগ্নি সেনারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানব সেবায়  সদা নিয়োজিত।

 

অগ্নি প্রতিরোধ ও নির্বাপণ আইন-২০০৩ :

Fire Service Ordinance-1959  রহিত করে ২০০৩ সনে প্রণীত অগ্নি প্রতিরোধ ও নির্বাপণ আইন-২০০৩ এবং ফায়ার সার্ভিস বিধিমালা ১৯৬১ দ্বারা বর্তমানে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের সকল কার্যক্রম পরিচালিত ও নিয়ন্ত্রিত হচ্ছে।

 

মূল মন্ত্র

“গতি, সেবা, ত্যাগ” আমাদের মূলমন্ত্র
দুর্যোগ মোকাবেলায় আমরা দৃঢ় প্রতিজ্ঞ।

 “Speed, Service, Sacrifice” is our motto:
Committed to face any disaster.”


ভিশন

“২০২১ সালের মধ্যে অগ্নিকান্ডসহ সকল দুর্যোগ মোকাবেলায় এশিয়ার অন্যতম শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান হিসেবে সক্ষমতা অর্জন”


মিশন

“অগ্নি নির্বাপণ ও প্রতিরোধসহ যে কোন দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রথম সাড়াদানকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে অন্যান্য সংস্থার সমন্বয়ে উদ্ধারকার্য পরিচালনা করে জান মালের ক্ষয়ক্ষতি কমিয়ে আনা এবং প্রশিক্ষণসহ অন্যান্য কার্যক্রমের মাধ্যমে বেসামরিক প্রতিরক্ষা নিশ্চিত করা।”

“To provide service support to reduce mortality rate during fire or any disaster, ensure first aid of victim, provide ambulance service to the patient, organize training, demonstration and consultancy to prevent fire incident and arrange civil defence measure.”


  দায়িত্ব

  • যে কোন সময়ে সংঘটিত অগ্নিকান্ড নির্বাপণ,  অগ্নি প্রতিরোধ ব্যবস্থা জোরদার করা, এবং যেকোন দুর্ঘটনা/দুর্যোগে অনুসন্ধান ও উদ্ধারকার্য পরিচালনা করা;
  • দুর্ঘটনা ও দুর্যোগে আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান, গুর”তর আহতদের দ্র”ত হাসপাতালে প্রেরণ এবং  রোগীদের এ্যাম্বুলেন্স সেবা প্রদান;
  • দেশের অন্যান্য সংস্থার সাথে সমন্বয় সাধন করে অগ্নি দুর্ঘটনাসহ যে কোন দুর্যোগ মোকাবেলা ও জান-মালের ক্ষয়ক্ষতি কমিয়ে আনা;
  • বহুতল ভবন, বাণিজ্যিক ভবন, শিল্প কারখানা ও বস্তি এলাকায় অগ্নিদুর্ঘটনা রোধকল্পে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ, পরামর্শ ও মহড়া পরিচালনা করা;
  • ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের কর্মীদের অগ্নি নির্বাপন, উদ্ধার ও প্রাথমিক চিকিৎসা বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান;
  • বহুতল ভবনের অগ্নি নিরাপত্তামূলক ছাড়পত্র প্রদান ও ছাড়পত্রের শর্তসমূহ বাস্তবায়ন নিশ্চিত করা;
  • যুদ্ধকালীন সময়ে বিমান হামলার হাত থেকে রক্ষার জন্য হুঁশিয়ারী সংকেতের মাধ্যমে সরকারী, আধা-সরকারী, স্বায়ত্বশাসিতসহ সকল বেসরকারী প্রতিষ্ঠানকে সতর্ক করা;
  • আন্তর্জাতিক অগ্নি নির্বাপণ ও বেসামরিক প্রতিরক্ষা সংস্থাসমূহের সংগে লিয়াঁজো রক্ষা এবং এতদসংশ্লিষ্ট আন্তর্জাতিক সভা সেমিনারে প্রতিনিধিত্ব করা;
  • ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের উন্নয়নের জন্য পরিকল্পনা প্রণয়ন, বাস্তবায়নসহ অগ্নি নির্বাপণ ও বেসামরিক প্রতিরক্ষা বিষয়ে গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা;
  • অগ্নি নির্বাপণ ও উদ্ধারকারী সাজ-সরঞ্জামাদি মেরামত ও রক্ষনাবেক্ষণ;
  • দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিষয়ে সরকারকে কৌশলগত পরামর্শ প্রদান;
  • অগ্নি প্রতিরোধসহ যে কোন দুর্যোগ মোকাবেলায় জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে কার্যক্রম গ্রহণ;
  • জান-মালের নিরাপত্তা বৃদ্ধিসহ দুর্যোগ মোকাবেলায় স্বেচ্ছাসেবক তৈরি করা;
  • সরকারী, আধা-সরকারী, স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান সমূহের কর্মকর্তা-কর্মচারী, জনসাধারণ ও শিক্ষার্থীদের অগ্নি নির্বাপণ প্রতিরোধ এবং বেসামরিক প্রতিরক্ষা বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান;
  • অধিদপ্তরের অধীন সকল স্থাপনা ভূমিকম্প সহনীয় করে জনবল ও সাজ-সরঞ্জামাদির নিরাপত্তা নিশ্চিত করা;
  • অধিদপ্তরের জনবলের দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে যুগোপযোগী আন্তর্জাতিক মানের প্রশিক্ষণ ব্যবস্থা করা;
  • ওয়্যারহাউজ ও ওয়ার্কশপ সমূহের ফায়ার লাইসেন্স প্রদান করা;
  • সংঘটিত অগ্নিকান্ডের তদন্ত করে প্রতিবেদন প্রনয়ণ করা;
  • আধুনিক অগ্নি নির্বাপণ ও উদ্ধার সাজ-সরঞ্জামাদির চাহিদা প্রণয়ন ও সংগ্রহ;
  • আইন অনুযায়ী সার্ভিস চার্জের বিনিময়ে সেবা প্রদান করা;


নতুন পোশাক প্রবর্তন

স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় পাক বাহিনীর খাকি পোশাক ছিল এই বিভাগের এতদিনের ইউনিফরম। এই পোশাক পরিবর্তন ছিল অত্র বিভাগের কর্মীদের দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা। বর্তমান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সরকার বিষয়টিকে বিবেচনায় নিয়ে এ বিভাগের খাকি পোশাক পরিবর্তন করে নতুন পোশাক প্রবর্তন করেছে। ফলে এ বিভাগের কর্মীদের দীর্ঘদিনের একটি আকাক্সক্ষা আলোর মুখ দেখেছে। নতুন পোশাক প্রবর্তনের ফলে এ বিভাগের কর্মীরা এখন আরো উজ্জীবিত ও দিন বদলানোর সনদ বাস্তবায়নে তারা নতুন প্রেরণায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।


রাষ্ট্রপতি ও ফায়ার সার্ভিস পদক প্রদান

এ বিভাগের কর্মীদের বীরত্বপূর্ণ ও দৃষ্টান্তমূলক সেবা কার্যক্রমের স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য ২০ বছর পর আবার চালু হয়েছে রাষ্ট্রীয় সম্মানজনক পদক প্রদান। ঝুঁকিপূর্ণ ও সাহসিকতামূলক কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ রাষ্ট্রপতি ফায়ার সার্ভিস পদক  ও রাষ্ট্রপতি সিভিল ডিফেন্স পদক প্রদান করা হয়। এ ছাড়াও বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস পদক ও বাংলাদেশ সিভিল ডিফেন্স পদক প্রদান করা হয়।


রোটারি ক্লাবের স¤মাননা লাভ

এ অধিদপ্তরের উজ্জীবিত কর্মীদের অগ্নি নির্বাপণ ও উদ্ধার কার্যক্রমের সাহসিকতার কারণে রোটারি ক্লাব অব ধানমন্ডি ২০১০ সালে অত্র অধিদপ্তরের ৫ জন কর্মীকে  স¤মাননা পুরস্কার প্রদান করে। ২০১১ সালেও তারা ৫ জন কর্মীকে স¤মাননা পুরস্কার প্রদান করেছে।

জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সংস্থাসমূহের সদস্য পদ লাভ

বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তর নিম্নোক্ত জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সংস্থার সদস্যপদ লাভ করেছে ঃ 

১। বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে 'International Search and Rescue Advisory Group (INSARAG)’ এর ফোকাল পয়েন্ট করা হয়েছে।
২। ইন্টারন্যাশনাল ফায়ার চিফস অ্যাসোসিয়েশন অব এশিয়া (IFFCAA),
৩। ন্যাশনাল প্লাটফরম ফর ডিজাস্টার রিডাকশন ইন বাংলাদেশ;
৪। বাংলাদেশ ন্যাশনাল ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অ্যাডভাইজরি কমিটি ও
৫। বাংলাদেশ আর্থকোয়াক প্রিপেয়ার্ডনেস অ্যান্ড অ্যাওয়ারনেস কমিটি।


ক্রীড়া ক্ষেত্রে সাফল্যঃ

ফিলোসোফিয়া দ্বিতীয় বিভাগ দাবা লীগে গত বছর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্পোর্টস ক্লাব অংশগ্রহণ করে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে। মোট ১৪ পয়েন্টের মধ্যে ১২ পয়েন্ট সংগ্রহ করে তারা এ বিজয় অর্জন করে এবং এ বছরের দাবা প্রতিযোগিতায় ফায়ার সার্ভিসের দাবা দল রানার্স আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে। এছাড়া ভলিবল ও কাবাডি টীম ঢাকা মহানগরী প্রিমিয়ার লীগসহ জাতীয় দিবস পালন উপলক্ষ্যে আয়োজিত টুর্নামেন্টে নিয়মিত অংশ গ্রহণ করে থাকে।


পরিবার কল্যাণ সমিতি গঠন

 সম্প্রতি ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সহধর্মিনীদের উদেঔাগে গঠিত হয়েছে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স পরিবার কল্যান সমিতি। এই সমিতি গঠনের মাধঔমে অধিদপ্তরের কর্মরত সদস্যদের পরিবার সমূহের মধ্যে সৌহার্দ্য ও সুসম্পর্কের বন্ধন আরো দৃঢ় হয়েছে এবং বিভিন্ন অর্থনৈতিক উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড পরিচালিত হচ্ছে।

ঝুঁকি ভাতা ও পূর্ণাঙ্গ রেশন বাস্তবায়ন

বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর অগ্নি নির্বাপনের ঝুঁকির বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে অপারেশনাল কর্মীদের জন্য দীর্ঘ প্রতীক্ষিত ঝুঁকিভাতা চালু করেছে। এ ছাড়া এ বিভাগের ইউনিফর্মধারী কর্মীরা নামমাত্র পরিমাণ রেশন পেতেন। বর্তমান সরকার ক্ষমতা গ্রহণের পর বিষয়টি সুবিবেচনায় নিয়ে এই বিভাগের অপারেশনাল এবং নন-অপারেশনাল সকল স্টাফের জন্য পূর্ণাঙ্গ রেশন বাস্তবায়ন করেছে। এটি বিভাগীয় কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য একটি বড় প্রাপ্তি।